Month: July 2020

জাতীয় দৈনিক “দেশ রুপান্তর” এ ডু সামথিং ফাউন্ডেশন এর কার্যক্রম

গত ২০ শে জুলাই জাতীয় দৈনিক “দেশ রুপান্তর” ডু সামথিং ফাউন্ডেশন এর কার্যক্রম নিয়ে ফিচার প্রকাশ করে। যেখানে আমাদের করোনা এবং করোনা পরবর্তী কার্যক্রম তুলে ধরা হয়েছে।

সংবাদটির লিংকঃ https://www.deshrupantor.com/specially/2020/07/20/233286?fbclid=IwAR2Sw3wrtP3U–bRFVQfX9uGK2B4qyPRZBCNUYV8_7f5diqEM4itvUjotDs

জন্ম থেকে অন্ধ আবদুর রহিমের পাশে ”ডু সামথিং ফাউন্ডেশন”

অন্ধ আব্দুর রহিম । জন্ম থেকে অন্ধ। অন্ধ মানুষ হলেও অন্যের মুখাপেক্ষী হননি কখনো । নিজে আয় করে চলেছেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের হাজী মোহাম্মদ মহসিন হলে খাবার সরবরাহের কাজ করতেন । বাসা থেকে রান্না করা খাবার হলে পৌঁছে দিতেন। কিন্তু মার্চে করোনা সংকটে হল বন্ধ হয়ে যাওয়াতে আয়ের রাস্তা সম্পুর্ণ বন্ধ হয়ে যায় । আব্দুর রহিম ভাইয়ের চোখেমুখে অন্ধকার নেমে আসে ।
ঢাবির Md. Aman Ullah ভাই আব্দুর রহিমের ব্যাপারে আমাদের বিস্তারিত জানান । লক ডাউনের মধ্যে আব্দুর রহিমকে Do Something Foundation এর পক্ষ থেকে কিছু উপহার সামগ্রী পৌঁছে দেয়া হয় । আব্দুর রহিম ভাই ডু সামথিং ফাউন্ডেশনের পুর্নবাসন প্রকল্পের আওতায় একটা দোকান করে দেয়ার অনুরোধ জানান । রোজার মাসে তিনি অনুরোধ করেছিলেন । আব্দুর রহিমের কষ্টের কথা জানিয়ে ফেসবুকে পোস্ট দেয়ার ৩০ মিনিটের মধ্যে ১ লাখ টাকা ম্যানেজ হয়ে যায় । আজকে আব্দুর রহিমের দোকান ঘরের জন্য পুরো টাকা হস্তান্তর করা হয় ।
আব্দুর রহিম ভাই গত দুই মাস ধরে আমাদের অনুরোধ করে যাচ্ছিলেন দ্রুত দোকান করে দেয়ার জন্য । রাস্তার সাথে একটা ভালো পজিশনের দোকান পান। সাধারণত মেইন রাস্তার সাথে ভালো মানের দোকানের পজিশন খালি থাকে না । দোকানের খালি থাকার খোঁজ পাওয়ার পর থেকে প্রতিনিয়ত ফোন করেছেন । কারণ তার আশংকা ছিল দোকানের পজিশন যদি অন্য কোন ব্যক্তি নিয়ে নেন!!
বিকাশের মাধ্যমে তখন ১০০০০ টাকা পাঠিয়ে দোকানের পজিশন বুকিং করা হয় । আজকে সরাসরি আব্দুর রহিমের হাতে বাকি ৯০০০০ টাকা তুলে দেয়া হয় । ১ লাখ টাকার ৮০০০০ টাকা শুধু দোকানের এডভান্স দিতেই শেষ হবে । বাকি ২০০০০ টাকায় মালামাল ক্রয় করবেন । সেই দিক থেকে আব্দুর রহিমের হাতে আরও কিছু সহযোগিতা তুলে দিতে পারলে ভালো হতো ।
আব্দুর রহিমের গ্রামের বাড়ি মুন্সীগঞ্জ৷ থাকেন ঢাকার কামারাংগীর চর । সরাসরি তার দোকানে গিয়ে অথবা আমাদের মাধ্যমে সহযোগিতা করতে পারেন । আব্দুর রহিমরা সংগ্রামী মানুষ । কোন প্রতিবন্ধকতার কাছে হার মানেন নি। ভিডিও দেখার পর আব্দুর রহিমের জন্য আপনার মনে একটা সফট কর্ণার তৈরি হবে নিশ্চিত ..

বন্যার্তদের মধ্যে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ – ২০২০

কোন বাড়িতে হাটু পানি, কোন বাড়িতে কোমর পানি । চুলা ডুবে গেছে । টিউবওয়েল ডুবে গেছে পানিতে । রান্না করতে পারছে না ।
এসব অসহায় মানুষের জন্য আমরা রান্নাকরা খাদ্য বিতরণ করছি । এ পর্যন্ত ২০০০ মানুষের মাঝে রান্না করা খাবার বিতরণ করা হয়েছে। নিত্য প্রয়োজনীয় বাজার বিতরণ করা হয়েছে ৫০০ পরিবারের মধ্যে। উত্তরাঞ্চল এ পানি বৃদ্ধি অব্যাহত রয়েছে । তাই আমাদের খাদ্য বিতরণ কর্মসূচী এখনো চলমান রয়েছে।